চুলের যত্নে হারবাল চা

5

জীবন-যাপনের ধরনে বদল আনার পাশাপাশি চুলের যত্নের রুটিনেও বদল আনুন। এক্ষেত্রে সবচেয়ে জরুরি হলো, চুলের যত্নে রাসায়নিকযুক্ত দ্রব্যের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে প্রাকৃতিক উপাদানের ব্যবহার বাড়ানো। অসংখ্য প্রাকৃতিক উপাদান আছে যেগুলো চুলের যত্নে কার্যকর।

হারবাল চা দিয়ে চুল পরিষ্কার করলে মাথার ত্বক এবং চুলের গ্রন্থিগুলো আপনার চুলকে আরো লম্বা এবং শক্তিশালী করতে সহায়ক হবে। আর এর সর্বোচ্চ ফলাফল পেতে আপনাকে এই ধরনের হারবাল চা দিয়েই চুল পরিষ্কার করতে হবে।

ব্ল্যাক টি
উচ্চমাত্রায় ক্যাফেইনে ঠাসা ব্ল্যাক টি একটি অবিশ্বাস্য হারবাল টি। যা আপনার চুলকে আরো লম্বা এবং শক্তিশালী করতে আপনার প্রতিদিনের চুলের যত্নের উপাদানগুলোর তালিকাভুক্ত হওয়ার যোগ্য।

ব্যবহার
এক কাপ তাজা ব্ল্যাক টি বানিয়ে তা পাখার বাতাসে জুড়িয়ে নিন। এরপর তা মাথার ত্বকে ভালো করে লাগান এবং আধা ঘন্টা ধরে রেখে দিন। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

উলোঙ টি
উচ্চমাত্রায় উপকারি এই হারবাল টি-তে আছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা আপনার চুলকে গোড়া থেকেই শক্তিশালী করবে এবং চুলের ভেঙ্গে পড়া ঠেকাবে।

ব্যবহার
এককাপ উলঙ টি বানিয়ে কয়েক মিনিটের জন্য পাখার নিচে রেখে ঠাণ্ডা করে নিন। এরপর তার সঙ্গে আধা চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে তা মাথার ত্বকে আলতো করে ঘষে ঘষে লাগান। এর ৪০ মিনিট পর হালকা গরম পানি দিয়ে মাথাটা ধুয়ে ফেলুন।

রোজমেরি টি
রোজমেরি টি স্বভাবে একটু কষাটে। এই হারবাল টি-তে আছে প্রচুর পরিমাণে চুল-শক্তিশালীকরন উপাদান যা চুলের ভেঙ্গে যাওয়া ঠেকাতে কার্যকর।

ব্যবহার
এক কাপ রোজমেরি টি বানানোর পর তা ঠাণ্ডা করে মাথার ত্বকে লাগান। এর এক ঘন্টা পর নিয়মিত ব্যবহারের শ্যাম্পু এবং হালকা গরম পানি দিয়ে মাথা ও চুল ধুয়ে ফেলুন।

কম্বুচা টি
চুলের জন্য উপকারী অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে পূর্ণ এই চা এমন আরেকটি চা যা চুলের বংশবৃদ্ধিতে সহায়ক এবং চুলকে লম্বা এবং শক্তিশালী করে।

ব্যবহার
এক কাপ কম্বুচা টি বানিয়ে পাখার নিচে কয়েক মিনিট রেখে দিয়ে ঠাণ্ডা করুন। এরপর এতে ৫-৬ ড্রপ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে তা মাথার ত্বকে হালকা ঘষে লাগান। এর আধা ঘন্টা পর ঠাণ্ডা পানি এবং শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন।

তুলসী চা
শুকনো তুলসী পাতা দিয়ে বানানো চা নতুন চুল গজানো এবং আপনার চুলের গ্রন্থিগুলোকে শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যবান করতে সহায়ক ভুমিকা পালন করবে। এতে আছে প্রচুর পরিমাণে ব্যাকটেরিয়া নাশক উপাদান এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা আপনার চুলের অবস্থার রুপান্তরে সহায়ক ভুমিকা পালন করবে।

ব্যবহার
এক পাত্র ফুটন্ত পানিতে কয়েকটি তুলসী পাতা ছেড়ে দিন। এরপর ৫-১০ মিনিট তা সেদ্ধ হতে দিন। পাতাগুলো তুলে ফেলে দিন। এরপর চা-টুকু ঠাণ্ডা করে মাথার ত্বকে লাগিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

রুবিওস টি
এই চা-ও নতুন চুল গজানোতে এবং চুল শক্তিশালী করতে সহায়ক। কারণ এতে আছে চুলকে সমৃদ্ধকারী এমন সব উপাদান যা চুলের সার্বিক স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সহায়ক।

ব্যবহার
এক কাপ রুবিওস টি বানিয়ে আধা ঘন্টা ধরে ঠাণ্ডা করে নিন। এর সঙ্গে আধা চা চামচ নারকেল তেল মিশিয়ে মাথায় আলতো করে ঘষে ঘষে লাগান। এরপর তা একঘন্টা রেখে দিন এবং হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ল্যাভেন্ডার টি
অনেক উপায়েই ল্যাভেন্ডার টি আপনার চুলের স্বাস্থ্যের উন্নতি করবে। এই হারবাল টি চুলকে শক্তিশালীকরনে সহায়ক অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ। যা নতুন চুল গজাতেও সহায়ক।

ব্যবহার
আধা কাপ ল্যাভেন্ডার টি-র সঙ্গে ২ টেবিল চামচ গোলাপ পানি মিশিয়ে নিন। এরপর তা মাথার ত্বকে লাগিয়ে এক ঘন্টার জন্য রেখে দিন এবং হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

গ্রিন টি
মাথার ত্বকে গ্রিন টি প্রয়োগ করলে চুল লম্বা ও শক্তিশালী হয়। এই চা-তে থাকা শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট আপনার চুলের জন্য বিস্ময়করভাবে উপকারিতা নিয়ে আসবে।

ব্যবহার
এক কাপ ঠাণ্ডা গ্রিন টি-র সঙ্গে আধা চা চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে তা মাথার ত্বকে হালকা করে ঘষে ঘষে লাগান। এরপর আধা ঘন্টা রেখে দিয়ে হালকা গরম পানি এবং নিয়মিত ব্যবহারের শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।