হরমোন ভারসাম্যহীনতার নানা লক্ষণ, জেনে নিন

4

হরমোনের ভারসাম্যহীনতার কারণে দেহে নানা সমস্যা সৃষ্টি হয়। হরমোনের ভারসাম্যহীনতার কিছু লক্ষণ তুলে ধরা হলো এ লেখায়। আপনার যদি এ ধরনের কোনো লক্ষণ প্রকাশিত হয় তাহলে প্রয়োজন অনুযায়ী চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন।

মানসিক চাপ
হরমোনের ভারসাম্যহীনতার কারণে উদ্বেগ ও মুড ওঠানামা করতে পারে। কর্টিসল ও অ্যাড্রিনালসহ কয়েকটি হরমোনের অনিয়ন্ত্রিত ক্ষরণের কারণে এ সমস্যা হতে পারে। এ সমস্যা মানসিক চাপ বৃদ্ধি করে এবং নানা ধরনের মানসিক সমস্যা ডেকে আনে।

সন্তান ধারণে বিঘ্ন
যেসব কারণে মানুষের উর্বরতায় ঘাটতি হতে পারে তার মধ্যে হরমোন ভারসাম্যহীনতা অন্যতম। এটি অনেক নারীর অকালে মেনোপজ ছাড়াও পলিসিস্টিক ওভারে সিনড্রোমের কারণ হতে পারে, যা উর্বরতার ঘাটতির জন্য দায়ী।

অনাকাঙ্ক্ষিত ওজন বৃদ্ধি
পর্যাপ্ত শারীরিক পরিশ্রম ও পরিমিত খাওয়ার পরেও ওজন নির্দিষ্ট মাত্রায় রাখা অনেকের পক্ষে সম্ভব হয় না। হরমোনের ভারসাম্যহীনতার কারণে এ বিষয়টি হতে পারে। এক্ষেত্রে থাইরয়েড হরমোন অন্যতম ভূমিকা রাখে।

অবসাদ
কিছু অবসাদের কারণ হিসেবে হরমোনের ভারসাম্যহীনতাকেও দায়ী করছেন গবেষকরা। এতে সব কাজে ধীর গতি, বিনা কারণে অতিরিক্ত ক্লান্তি, চিন্তাভাবনায় জড়তা ইত্যাদি দেখা দিতে পারে।

অনিদ্রা
হরমোনের সমস্যার কারণে ঘুমেও সমস্যা হতে পারে। অনেক নারীই সন্তান জন্মদানের পরে হরমোনজনিত কারণে অনিদ্রায় ভোগেন। এ ধরনের অনিদ্রা পরবর্তীতে আরও নানা সমস্যার কারণ হয়।

পেটের চর্বি বৃদ্ধি
নানা ধরনের হরমোনের মাত্রা দেহে তারতম্য হলে তা পেটের চর্বি বাড়াতে পারে। কর্টিসল হরমোনটির মাত্রা দেহে অতিরিক্ত বেড়ে গেলে তা পেটের চর্বি বাড়িয়ে দিতে পারে।

অতিরিক্ত গরম লাগা
হরমোনের ভারসাম্যহীনতায় হঠাৎ করে অতিরিক্ত গরম লাগতে পারে। এতে বাড়তি ঘাম ও রাতে ঘুমের বিঘ্ন ঘটতে পারে। অ্যাড্রিনাল, ওভারি, থাইরয়েড ও গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল হরমোনের ভারসাম্যহীনতায় এমনটা হতে পারে।

ব্রণ
নানা ধরনের হরমোনের কারণে অনেকেই ব্রণে আক্রান্ত হন। এক্ষেত্রে টেস্টোস্টেরন হরমোন অন্যতম নিয়ামক। এটি রক্তে মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে গেলে ত্বকের তৈলাক্ত ভাব বেড়ে যায় এবং ব্রণের সৃষ্টি হয়।