১০ অভ্যাসে হবেন দীর্ঘজীবি

1
প্রতীকী ছবি

বিশ বছর বয়সীরা স্বাস্থ্য নিয়ে ততোটা কেয়ার করেন না। কিন্তু এই বয়সেই আপনি যেসব স্বাস্থ্যগত এবং জীবন-যাপন সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেন সেসবই আপনার পরবর্তী জীবনটা কেমন হবে তা নির্ধারণ করে দেয়। সুতরাং সুস্বাস্থ্য পেতে এবং দীর্ঘজীবি হতে চাইলে ২০ বছর বয়স থেকেই কিছু স্বাস্থ্যকর অভ্যাস রপ্ত করতে হবে।

যদি একটি চর্বিমুক্ত শরীর গঠন, মদপান না করা, ধুমপান না করা এবিং নিয়মিতভাবে স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস অনুরসরণের অভ্যাস গড়ে তুলতে পারেন তাহলে মধ্য ও শেষ বয়সে গিয়ে আপনি বেশ স্বাস্থ্যবান থাকতে পারবেন।

চলুন জেনে নিই কোন কোন অভ্যাসগুলো আপনাকে দীর্ঘজীবি হতে এবং সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে সহায়তা করবে-

১. দিনের শুরুতেই এক গ্লাস লেবু-পানি পান করুন
প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠেই খালি পেটে এক গ্লাস হালকা গরম পানির সঙ্গে লেবুর রস ও গোলমরিচ গুড়া মিশিয়ে পান করুন। এর ফলে নাশতা খাওয়ার আগেই আপনার বিপাকীয় প্রক্রিয়া চালু হয়ে যাবে।

২. সাথে হালকা জলখাবার রাখুন
বাইরের অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া এড়াতে সঙ্গে সবসময় স্বাস্থ্যকর হালকা খাবার নিয়ে বের হউন। তা হতে পারে ফলমূল, বাদাম বা দই।

৩. দাঁত পরিষ্কারে সুতা ব্যবহার করুন
দাঁতের রোগের সঙ্গে হৃদরোগের সম্পর্ক রয়েছে। সুতরাং খাবার খাওয়ার পর সুতা দিয়ে দিয়ে দাঁত পরিষ্কার করুন। এতে ক্যাভিটিস এর মতো দাঁতের রোগের ঝুঁকি কমার পাশপাশি হৃদরোগের ঝুঁকিও কমবে।

৪. প্রতিবেলা খাবার খাওয়ার পর একটি আপেল খান
দাঁতের সমস্যা দূর করতে একটি সহজ সমাধান হলো আপেল খাওয়া। এতে আপনার দাঁতে লেগে থাকা খাবার পরিষ্কার হয়ে পেটে চলে যাবে। মাঁড়িতে রক্তের প্রবাহ বাড়াবে এবং মুখের ভেতরে অ্যাসিডিটি কমবে।

৫. প্রতিদিন কন্ট্রাস্ট শাওয়ার নিন
প্রথমে গরম এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে গোসল করাকে বলে কন্ট্রাস্ট শাওয়ার। কন্ট্রাস্ট শাওয়ার স্নায়ুতন্ত্র এবং রক্ত চলাচলের শিরা-উপশিরাগুলোকে শক্তিশালী করে।

৬. ডেস্কে এক বোতল পানি রাখুন
অনেকেই বুঝতে পারেন না যে তারা পানিশুন্যতায় ভুগছেন। স্বাস্থ্যকর জীবন পেতে প্রথম পদক্ষেপটিই হলো বেশি বেশি পানি পান করা। আর ডেস্কে একটি বোতল রাখলে তা আরো সহজ হয়ে যাবে।

৭. বাদাম খান
প্রতিদিন অন্তত ৫০ গ্রাম বাদাম খান। বাদামে আছে ফ্যাটি এসিড এবং ওমেগা-৩ যা হৃদপিণ্ড, চুল এবং নখের স্বাস্থ্য ভালো রাখবে।

৮. রাতে মোজা পরে ঘুমান
রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে নারকেল তেলের সঙ্গে কয়েকফোটা মিন্ট মিশিয়ে পায়ের পাতায় লাগান। এরপর মোজা পরে ঘুমান। এতে আপনার পায়ের স্বাস্থ্য আজীবন ভালো থাকবে।

৯. প্রতিদিন বই পড়ুন
প্রতিদিন বই পড়লে আপনার স্মৃতি শক্তি, যৌক্তিক চিন্তা এবং কল্পনাশক্তি বাড়বে। নিয়মিত পড়াশোনা করলে আলঝেইমার এবং ডিমেনশিয়া রোগ থেকেও মুক্ত থাকা যায়।

১০. ভেসজ নির্যাস দিয়ে মুখমণ্ডল পরিষ্কার করুন
আপনার ত্বকের সঙ্গে মানানসই কোনো প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে নিয়মিতভাবে মুখমণ্ডল পরিষ্কার করুন নিয়মিতভাবে। এতে চেহারার বুড়িয়ে যাওয়ার গতি কমবে।