চেনা ফুল দাঁতরাঙা

504

ফুলের নাম দাঁতরাঙা। এটির বৈজ্ঞানিক নাম Melastoma malabathricum। এর আরো কিছু নাম রয়েছে: ফুটকি, লুটকি, ফুটুল, বনতেজপাতা ইত্যাদি। আমাদের দেশে বন তেজপাতা, লুটকি এসব নামেও ডাকা হয়।

দাঁতরাঙা এক ধরনের গুল্মজাতীয় গাছ।

দাঁতরাঙা 2

এর কিছু ঔষধি গুণাগুণ রয়েছে। এটি প্রধাণত পাহাড়ি বা উচুঁ এলাকায় বেশি জন্মে থাকে। এই গাছগুলো দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার প্রায় সর্বত্র ছড়িয়ে আছে। বাংলাদেশ ছাড়াও এটি ভারতের বিভিন্ন অঞ্চল এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়ার দেখা যায়। বিশেষ করে মালয় এবং ইন্দোনেশিয়ার বন-জঙ্গলে।

আমাদের দেশে বেশ কয়েকটি জাত দেখা যায়। বিশেষ করে পার্বত্য জেলাগুলোতে পাহাড়ের ধারে প্রচুর দেখা যায়। পাতা দেখতে অনেকটা তেজপাতার মত সরু ও লম্বা।

পাঁচটি পাপড়িতে আবৃত ফুলটির রঙ গোলাপি থেকে হালকা লাল। পাতা ও ফুলের রঙ লালচে বলেই এঁর নাম সম্ভবত দাঁতরাঙা।

দাঁতরাঙা 3

এটি কৌষ্ঠ্যকাঠিন্য রোগে ব্যবহৃত হয়। দাঁতরাঙার পাতার নির্যাস মানবদেহের ক্যান্সার, হৃদরোগ রোধে সহায়ক। তাছাড়া এর পাতার রস আমাশয়, পেটব্যথা, বাত ও বাতজ্বর দূর করতে পারে। আলসার, উচ্চ রক্তচাপ, দাঁত ব্যথা, চর্মরোগ ও ডায়রিয়া চিকিৎসায় দাঁতরাঙা ব্যবহৃত হতে দেখা যায়।

গাছটির উচ্চতা ১ মিটার পর্যন্ত হয়ে থাকলেও কখনো কখনো ৩ মিটার উচ্চতার গাছও চোখে পড়ে।

তেজপাতার ন্যায় দেখতে এর পাতার দৈর্ঘ্য ৪ হতে ১১ সেন্টিমিটার; প্রস্থে ১.৩ সেন্টিমিটার যাতে ৫ হতে ৭ টি শিরা থাকে। এদের ফুল উজ্জ্বল বেগুনি বর্ণের এবং ফল সবুজ।